পিতার জাতীয় পরিচয়পত্র ভুল দ্রুত সংশোধন করার নিয়ম services.nidw.gov.bd

অনেকের আইডি কার্ড পাবলিক ভোটার আইডি কার্ড পিতার নামে ভুল আছে। ভোটার আইডি কার্ড পিতা ও মাতার নাম সংশোধনের জন্য করণীয় কি এবং কি কি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিলে দ্রুত আবেদন নিষপত্তি হতে পারে সে বিষয়ে সঠিক ধারণা না থাকলে ভোগান্তি তো একটু হতেই পারে।।

আজ এই কাগজ চাইছে তো কাল ওই কাগজ চাইছে ঘুরতে ঘুরতে বিরক্ত হয়ে যাচ্ছে। তারপর বলে বেড়াচ্ছে নির্বাচন অফিস ভোগান্তির শেষ নেই! কি কি কারনে মাসের পর মাস অপেক্ষা করা লাগে চলুন জানি এবং সেই সাথে আরো জানি কি করলে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের আবেদন দ্রুত নিষ্পত্তি হয়।

এমন হাজারো মানুষের আইডি কার্ড ভোটার আইডি কার্ড কিছু না কিছু তথ্য ভুল হয়ে আছে। প্রয়োজন পড়েছে না তাই হয়তো সেগুলো সংশোধনের কোন চিন্তা ভাবনা করছে না। একটা সময় দেখবেন কোন না কোন কাজ করতে গিয়ে আইডি কার্ড ভোটার আইডি কার্ডের কপি না জমা দেওয়া পর্যন্ত আপনার সেই কাজ হচ্ছে না।

জাতীয় পরিচয়পত্র নিজের নাম সংশোধনে করণীয়

পিতার জাতীয় পরিচয়পত্র ভুল দ্রুত সংশোধন করার নিয়ম

মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র ভুল দ্রুত সংশোধন করার নিয়ম

তখন আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করার জন্য দৌড়াদৌড়ি শুরু করে দিবেন। একটা কথা আছে যে, সময়ের এক ফোর আর অসময়ের তাও কাজ হয় না। যখন আপনার নিতান্তই প্রয়োজন পড়বে তখন এমন না হয় ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন এর কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ আছে। অথবা আবেদনের জটিলতার কারণে সময় বেশি লাগছে।

ভোটার আইডি কার্ড পিতা নাম সংশোধনের ক্ষেত্রে করনীয়

একটি এনআইডি কার্ড একজন ব্যক্তির অনেকগুলো তথ্য বহন করে। যাদের এনআইডি কার্ডে পিতার নাম ভুল আছে তারা নিম্নোক্ত পদ্ধতি অনুসরণ করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিয়ে সংশোধনের আবেদন করতে পারবেন। পিতার নামে কি কি ধরনের ভুল হতে পারে । হতে পারে তাদের নামের আগে থাকা মোঃ নেই যোগ করবেন অথবা মোঃ দেওয়া আছে বাদ দিতে হবে তাদের নাম পদবি ভুল থাকতে পারে, নামের বানান ভুল হতে পারে। কিছু ব্যক্তির ক্ষেত্রে দেখা যায় পিতার নাম সম্পূর্ণ ভুল এসেছে।

এছাড়া আরো অন্যান্য কিছু ব্যতিক কর্মী ভুল থাকতে পারে যেমন পিতার নামের পদবী হয়েছে বেগম বা নামের আগে মোহাম্মদ দেওয়া আছে ইত্যাদি। যে ধরনেরই ভুল হোক না কেন সেগুলো সংশোধন করার জন্য দুটি উপায় আবেদন করা যেতে পারে। প্রথমত উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন ফরম ২ পূরণ করতে হবে। ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন এর ফি হিসাব করে রকেট বিকাশের মাধ্যমে জমা দিতে হবে। তারপর ফ্রি জমার রশিদ সহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আবেদনের সাথে বিনা করে আবেদন দাখিল করার যাবে।

দ্বিতীয়তঃ অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের আবেদন করা যায়। নির্বাচন অফিসের ওয়েবসাইটে services.nidw.gov.bd গিয়ে রেলস্টেশন করে লগইন করার পর প্রোফাইল অপশন এ গিয়ে ভুল তথ্য গুলো এডিট করে সঠিকভাবে লিখে সংশোধনের আবেদন দাখিল করা যায়। অনলাইন সিস্টেমে আবেদন করলে অফিসে ঘোরাঘুরির প্রয়োজন হয় না। বাড়িতে বসেই সবকিছু করা যায় আপনি নিজের বিকাশ রকেট থেকে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন ফি জমা দিতে পারবেন।

যে কাগজপত্রগুলো সাথে জমা দিতে হবে সেগুলো মোবাইলে ছবি তুলে অথবা স্ক্যান করে পিডিএফ ফাইল তৈরি করে আপলোড করতে পারবেন। ভোটার আইডি কার্ডে পিতা নাম সংশোধন করতে যেসব কাগজপত্র জমা দেয়া যেতে পারে। জাতীয় পরিচয় পত্রে পিতার সংশোধনের জন্য নিম্নোক্ত কাগজপত্র গুলো জমা দেওয়া যেতে পারে।

১/ এসএসসি সনদ:

২/ অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ:

৩/ পিতার এনআইডি কপি:

৪/ সকল ভাই বোনের এনআইডি কার্ডের কপি:

আশা করি ভোটার আইডি কার্ডে পিতার নাম ভুল সংশোধনের বিষ হয়ে বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন। এরপরেও যদি এ বিষয়ে কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট করবেন। আমাদের প্রশ্নের উত্তর দিতে অবশ্যই চেষ্টা করব। লেখাটি ভালো লাগলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করার অনুরোধ রইলো।। ধন্যবাদ

Related Articles

3 Comments

  1. আমার পিতার নামে টাইটেল চৌধুরী আছে আবার আমার আইডি কার্ডেও পিতার নামে চৌধুরী আছে ।কিন্তু আমার একাডেমিক সাটিফিকেটে পিতার নামে চৌধুরী না থাকায় আমার nid তে পিতার নামে শেষে চৌধুরী বাদ দিতে হচ্ছে ।আমি অনলাইনে আমার সার্টিফিকেট দিয়ে সংশোধের জন্য আবেদন করি কিন্তু কতৃপক্ষ পিতার আইডি সংযুক্ত করতে বলে ।

  2. ভাই আবেদন করছি দুই আস আগে এখন ও ঠিক হচ্ছে না,উপজেলা থেকে বলতেছে জেলায় যেতে আর ওখানে টাকার ব্যবসা চলে

  3. ভাই শিক্ষা যোগ্যতা না থাকিলে করনিয় কি

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button