যারা স্মার্ট কার্ড পাননি 2022 কিভাবে পেতে হবে তা জেনে নিন

হিসেব অনুযায়ী যারা 2022 সালে স্মার্ট কার্ড পাওয়ার কথা রয়েছে এবং তার পরেও পাননি তারা আছে সঠিক নিয়ম অনুসরণ করেই স্মার্ট কার্ড কিভাবে পেতে হবে তা জেনে নিন। সাধারণত যারা ভোটার আইডি কার্ড এর জন্য তথ্য নিবন্ধন করে পেপার লেমিনেটিং জাতীয় পরিচয় পত্র পেয়েছেন তারাই ভাবছেন যে এটাই সর্বশেষ দেওয়া ভোটার আইডি কার্ডের অরিজিনাল কপি।

কিন্তু বাংলাদেশ সরকার বর্তমানে যে নিয়ম করেছেন সেই নিয়ম অনুসরণ করে প্রত্যেকটি ব্যক্তির কাছে স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ড থাকতে হবে। অনেকের হয়ত অবহেলার কারণে অথবা খুব একটা গুরুত্ব মনে না করে যারা এই সকল দায়িত্বে নিয়োজিত থাকেন তারা হয়তো আপনাদের এলাকায় স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ডের সরবরাহ এবং সেগুলো বন্টন করার ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।

আমরা 2015 সালে ভোটার আইডি কার্ডের জন্য আবেদন করি এবং আবেদন করার পরেও পরবর্তীতে সাময়িক ভোটার আইডি কার্ড পেয়ে থাকলেও এখন পর্যন্ত কোনো নির্দিষ্ট এবং স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ড হাতে পাইনি। যেহেতু ভোটার আইডি কার্ডের ব্যবহার দৈনন্দিন জীবনে অতীব গুরুত্বপূর্ণ এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হওয়া থেকে শুরু করে চাকরির আবেদন এবং অন্যান্য কাজে যেহেতু এটা আবশ্যিকভাবে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে সেহেতু আপনাকে স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার সংগ্রহ করতে হবে এবং সেই অনুযায়ী কাজ করতে হবে।

তাছাড়া কিছু কিছু ক্ষেত্রে স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ড অথবা অরিজিনাল ভোটার আইডি কার্ড প্রদর্শন করা লাগে অথবা অনুলিপি প্রদান করা লাগে। এই ভোটার আইডি কার্ড আপনি যদি অরিজিনাল প্রদান করতে না পারেন অথবা সাময়িক ভোটার আইডি কার্ড প্রদান করার মাধ্যমে যদি সেখানে কোন ধরনের মেয়াদ না থাকে অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায় তাহলে আপনি হয়তো অনেক সময় ঝামেলায় পড়বেন। তবে এনআইডি সার্ভিস এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট যাদেরকে এখন পর্যন্ত স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ড প্রদান করেননি তাদেরকে অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে প্রোফাইল ওপেন করার মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করার সুযোগ প্রদান করেছে।

সেখানে কোন মেয়াদোত্তীর্ণের বিষয় উল্লেখ নেই বলে আপনারা হয়তো অনেক জায়গায় তার অনুলিপি প্রদান করে আপনার গুরুত্বপূর্ণ কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন। তাছাড়া সেটির মাধ্যমে আপনি যাচাই করতে পারবেন যে আপনার স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার এবং পেপার লেমিনেটিং ভোটার আইডি কার্ডের নাম আছে কিনা। তবে আপনার যদি স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ডের প্রয়োজন হয় তাহলে আপনাকে বলবো যে এটি আপনার উপজেলা সার্ভার স্টেশনে গিয়ে যোগাযোগ করলে তারা আপনাকে এ বিষয়ে সহায়তা প্রদান করবে।

আর যদি এটি আপনার অতীব প্রয়োজন হয় তাহলে আপনারা ভোটার আইডি কার্ডের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন এবং সেখানে একটি প্রোফাইল ওপেন করে আপনার কিছু কিছু তথ্য হালনাগাদ করুন এবং এর মাধ্যমে তথ্য সংশোধনের আবেদন যখন করবেন তখন তথ্য সংশোধনের আবেদনের ওপর ভিত্তি করে আপনাকে পরবর্তীতে ভোটার আইডি কার্ডের স্মার্ট কপি প্রদান করা হবে।

অর্থাৎ তথ্য সংশোধন যখন আপনি করবেন তখন আপনাকে নির্দিষ্ট ফিস প্রদান করতে হবে এবং এর মাধ্যমে আপনি যখন সংশোধিত ভোটার আইডি কার্ড পাবেন অথবা হালনাগাদকৃত ভোটার আইডি কার্ড পাবেন তখন আপনাকে পেপার লেমিনেটিং ভোটার আইডি কার্ড প্রদান না করে একেবারে স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে দেওয়া হবে।

তাই ভোটার আইডি কার্ড তৈরি করার ব্যাপারে অথবা ভোটার আইডি কার্ডের স্মার্ট কার্ড সংগ্রহ করার ব্যাপারে আপনাদের এলাকায় যে কমিশনার দায়িত্বে রয়েছেন তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন অথবা সরাসরি উপজেলার সার্ভার স্টেশন এ গিয়ে যোগাযোগ করলে তাদের কাছে যদি এটি সরবরাহ করা হয় তাহলে তার আপনাকে একটি প্রদান করবে। আর যদি বুঝতে পারেন আপনার স্মার্ট আইডি কার্ড 2022 সালে পাওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই তাহলে আপনারা তথ্যের হালনাগাদ করে এটি তথ্য সংশোধনের পর্যায়ে ফেলে আবেদনপত্র জমা দেন এবং সংশোধিত ভোটার আইডি কাড স্মার্ট কপি হিসেবে গ্রহণ করুন।

Related Articles

5 Comments

  1. আমার নতুন ডিজিটাল একাডেমি এখনো আসেনি

  2. নাম. মোঃ বাবুল মিয়া
    পিতা. মোঃ হাবিব মিয়া
    মাতা. নাজমা বেগম
    ঠিকানা.শুভুপুর পুলের মাথা বেড়িবাদ ৫ নং পাঁচ তুবি
    Nid number.1916700196557

    1. নাম. মোঃ বাবুল মিয়া
      পিতা. মোঃ হাবিব মিয়া
      মাতা. নাজমা বেগম
      ঠিকানা.শুভুপুর পুলের মাথা বেড়িবাদ ৫ নং পাঁচ তুবি
      Nid number.1916700196557

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button